‘স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২’ মোবাইলের দাম কমে গেল

‘স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২’ মোবাইলের দাম কমে গেল…

স্মার্টফোনের বাজারে ইলেকট্রনিকস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, স্যামসাং একটি সুপরিচিত নাম। ব্যবহারকারীর সংখ্যার দিক দিয়ে বর্তমানে বিশ্বের সেরা স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হলো স্যামসাং। স্যামসাং মোবাইল ফোনের দাম হাতের নাগালে থাকার পাশাপাশি ইউজার ভালো অভিজ্ঞতা হওয়ার কারণে আমাদের দেশেও স্যামসাং ফোন অনেক জনপ্রিয়।

বিশেষ করে স্যামসাং এর এ সিরিজ ও এম সিরিজের ফোনসমুহ বাজারে আনার পর থেকে ব্যবহারকারীদের মন জয় করে নেয় ফোনগুলো। দেশের বাজারে কম দামে ভালো ফিচার অফার করার মাধ্যমে রিয়েলমি ও শাওমির সাথে ইকুয়াল প্রতিযোগিতায় আছে স্যামসাং।

বাস্তব ব্যবহারের বিষয় হিসাব করলে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ বেটার একটি ফোন। অর্থাৎ, ফোনটি সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্য যথাযথ বলা চলে। এই চিপসেট তেমন একটা পাওয়ার ব্যবহার করেনা বলে ব্যাটারি লাইফ ও অধিক পাওয়া যাবে ফোনটি থেকে। আর হ্যাঁ ভারি গেম খেলার জন্য আপনি নিতে পারেন এই গেমিং ফোন।

এখন, স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর দাম কমলো। ফোনটির রেগুলার দামের চেয়ে দেড় হাজার টাকার বেশি ডিসকাউন্ট দেয়া হচ্ছে এখন। স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ ফোনের সচরাচর দাম হচ্ছে ২০,৫৯৯ টাকা, যা এখন ১৮,৯৯৯ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। আমাদের কাছে দাম বিবেচনায় বেশ ভালো ডিল মনে হয়েছে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ স্মার্টফোনটি। বর্তমানের দাম বিবেচনায় স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ ফোনটি কেনা কতটা যুক্তিযুক্ত হতে পারে সে ব্যাপারে জানবেন এই পোস্টে। চলুন জেনে নেওয়া যাক স্যামসাং গ্যালাক্সি এম২ ফোনটির স্পেসিফিকেশন সম্পর্কে বিস্তারিত।

একনজরে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর স্পেসিফিকেশন:
  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫ইঞ্চি
  • প্রসেসরঃ স্যামসাং এক্সিনোস ৮৫০
  • র‍্যামঃ ৬জিবি
  • স্টোরেজঃ ১২৮জিবি
  • ব্যাক ক্যামেরাঃ ৪৮মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা
  • ফ্রন্ট ক্যামেরাঃ ৮মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারিঃ ৬০০০মিলিএম্প
  • দামঃ ১৮,৯৯৯টাকা

ডিজাইন

প্রথমে, স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ ফোনটির ডিজাইন সম্পর্কে কথা বলা যাক। অন্যান্য স্যামসাং ফোনের মত এম১২ ফোনটিতেও স্যামসাং এর সিগনেচার ডিজাই্নের দেখা পাওয়া যায়। স্মাজ-রেসিস্ট্যান্ট, ডুয়াল-টোন ফিনিশ রয়েছে ফোনটির পিছনের প্যানেলে। পিছনের প্যানেলের অধিকাংশ অংশ ভার্টিক্যাল লাইন দ্বারা কভার করা রয়েছে যাতে এক ধরনের ম্যাট ফিনিশ রয়েছে। তবে ব্যাক প্যানেলে প্লাস্টিক ব্যবহার করা হয়েছে।

ফোনের পাওয়ার বাটনে ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সর এমবেডেড রয়েছে। ফোনের ফ্রন্টে রয়েছে ওয়াটারড্রপ নচ, যা বর্তমানের ট্রেন্ড বিচারে কিছুটা বেমানান। বর্তমানে এন্ট্রি লেভেলের বাজেটের ফোনেও আমরা পাঞ্চ-হোল ডিসপ্লে কাট-আউট দেখে থাকি। সে বিষয় বিবেচনায় স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর নচ ডিসপ্লে কিছুটা হতাশাজনক বলা চলে। তবে অনেকেই এই ধরনের নচ পছন্দ করেন, তাদের জন্য ডিভাইসটির ডিজাইনে কোনো কমতি থাকছেনা।

ডিসপ্লে

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর অন্যতম আকর্ষণ হলো এর হাই রিফ্রেশ রেট স্ক্রিন। স্যামসাং এর বাজেট ফোনে ৬.৫ইঞ্চির এইচডি+ ডিসপ্লে রয়েছে, যার আবার ৯০হার্জ রিফ্রেশ রেট। এই বাজেটে যেখানে শাওমি ও রিয়েলমি এর মত কোম্পানি ফুলএইচডি+ ডিসপ্লে অফার করছে, সেখানে স্যামসাং এম১২ এর এইচডি+ স্ক্রিন পিছিয়ে থাকবে।

তবে অনেকের কাছেই ৯০হার্জ রিফ্রেশ রেট এই অভাব পূরণ করবে। এই হাই রিফ্রেশ রেট এডাপ্টিভ হওয়ায় প্রয়োজন অনুসারে স্ক্রিনের রিফ্রেশ রেট ব্যবহার করবে ফোনটি। সকল দিক বিবেচনায় এই ডিসপ্লেকে মানানসই বলা যেতেই পারে।

ক্যামেরা

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ ডিভাইসটিতে কোয়াড-ক্যামেরা সেটাপ থাকলেও এখানে মূলত দুইটি ক্যামেরা কার্যকরী। অর্থাৎ ট্রেন্ডিং ক্যামেরা সেটাপ এর শিকার এই ফোনটি। ফোনটির মেইন সেন্সর হলো ৪৮মেগাপিক্সেল সেন্সর। ৫মেগাপিক্সেল ১২৩-ডিগ্রি ফিল্ড অফ ভিউ এর একটি ক্যামেরা রয়েছে।

আর ২মেগাপিক্সেল এর একটি ম্যাক্রো ও একটি ডেপথ ক্যামেরা তো থাকছেই যা বর্তমানে প্রায় সকল বাজেট স্মার্টফোন এর নিয়মিত সঙ্গী। ফোনের ফ্রন্টের নচে স্থান পেয়েছে ৮মেগাপিক্সেল এর সেল্ফি ক্যামেরা। স্যামসাং ফোন হওয়ায় এই বাজেটে বাজারের যেকোনো ফোনের চেয়ে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর ক্যামেরা অনেক ভালো বলা চলে।

শক্তিশালী প্রসেসর

স্যামসাং এক্সিনোজ ৮৫০ এসওসি নামের এক নতুন ৮ ন্যানো মিটার চিপসেট চালু করেছে, যার ৮টি কোর সর্বাধিক ২ গিগা হার্টজে চলবে। সাধারণত, এ ধরনের প্রসেসর কেবলমাত্র প্রিমিয়াম ফোনের ক্ষেত্রেই পাওয়া যায়। গ্যালাক্সি এম১২ কম শক্তি খরচ করে এবং কার্যকর ব্যাটারি পারফরমেন্স নিশ্চিত করে।

ব্যাটারি

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর আরেকটি আকর্ষণীয় ফিচার হলো এর ৬০০০ মিলিএম্প এর ব্যাটারি। পাওয়ার-সেভিং সিপিউ ও এইচডি+ ডিসপ্লের এই ফোনটিতে থাকা এই বিশাল ব্যাটারির কল্যাণে অসাধারণ মাত্রার ব্যাটারি ব্যাকাপ পাওয়া যাবে।

অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে এই বাজেটে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ এর ব্যাটারি ব্যাকাপের ধারেকাছেও আসতে পারবেনা বাজারের অন্য কোনো ফোন। ফোনের বক্সে থাকা ১৫ ওয়াট এর চার্জার দ্বারা ফোনটির এই বিশাল ব্যাটারিকে চার্জ করতে আড়াই ঘন্টার মত সময় লাগবে।

সুবিশাল স্টোরেজ 

কোনো ফোনে যদি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্ট এবং ফাইলসহ সবকিছু স্টোর করা না যায়, তাহলে ফোন থাকা অযৌক্তিক। গ্যালাক্সি এম১২-এ রয়েছে ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ, যা মাইক্রোএসডির মাধ্যমে ১ টেরাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যায়।  ফোনটি ওয়ান ইউআই কোর ৩.১ দ্বারা চলবে। স্যামসাং এর অপটিমাইজেশন এর কথা আমাদের সবার জানা, তাই এই ফোনটি কাগজে কলমে আহামরি চমক না দেখালেও বাস্তবিক জীবনে ব্যবহারের ক্ষেত্রে বাজারের অন্য ফোনগুলোর সাথে সমানে টক্কর দিবে। তাই, এটি মিলেনিয়ালদের জন্য, যারা ছবি ও ভিডিওর মাধ্যমে নিজেদের স্মরণীয় মুহূর্ত ধরে রাখতে পছন্দ করে তাদের জন্য একটি যথার্থ ডিভাইস।

ঝামেলাহীন গেমিংয়ের অভিজ্ঞতা

গেমের চাহিদা যেমনই হোক, আপনার গেম খেলার সাথী হতে পারে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২। ফোনটির এলপিডিডিআর৪ র‌্যাম একে মাল্টি-টাস্কিং পাওয়ারহাউজে পরিণত করার মাধ্যমে এর অসাধারণ পারফরমেন্স নিশ্চিত করবে। বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্রাউজ করার সময় চিপসেটটি দিবে মসৃণ মাল্টি-টাস্কিং, চমকপ্রদ পারফরমেন্সের অভিজ্ঞতা। এছাড়াও, এটি শক্তির ব্যবহার কমাবে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম১২ ফোনটি আপদের কাছে কেমন লেগেছে? ফোনটি সম্পর্কে আপনার মতামত আমাদেরকে কমেন্ট সেকশনে জানান।

Leave a Comment