ওয়েবসাইট কি? কেন ওয়েবসাইটের প্রয়োজন হয়?

ইন্টারনেট আমাদের জীবনের দৈনন্দিন একটি শব্দে পরিণত হয়েছে। আর এই ইন্টারনেট এর অন্যতম প্রধান উপাদান হচ্ছে বিভিন্ন ওয়েবসাইট। কিন্তু ওয়েবসাইট কি তা অনেকেই জানেন না। ওয়েবসাইটকে ইন্টারনেট এর অবিচ্ছেদ্য অংশ বলা চলে।

আপনি যদি একটি ব্যবসার মালিক হয়ে থাকেন, তাহলে অবশ্যই আপনার ব্যবসার একটি ওয়েবসাইট থাকা জরুরি। চলুন জেনে নেওয়া যাক ওয়েবসাইট কি ও কেনো আপনার একটি ওয়েবসাইট দরকার হতে পারে সে সম্পর্কে বিস্তারিত।

ওয়েবসাইট কি?

ওয়েবসাইট এর প্রয়োজনীয়তা জানার আগে ওয়েবসাইট কি ও কিভাবে কাজ করে সেটাও জানা জরুরি। চলুন জেনে নেওয়া যাক সংক্ষেপে ওয়েবসাইট ও এর কার্যক্রম সম্পর্কে।

ওয়েবসাইট হলো সংযুক্ত কিছু ওয়েব পেজের সমাহার, যা একই ডোমেইন নেম এর অধীনে থাকে। যেকোনো ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, বা সংস্থা তাদের বিভিন্ন প্রয়োজনে ওয়েবসাইট তৈরী করতে পারে। এই ওয়েবসাইট আবার সার্ভারে সংরক্ষিত থাকে যাকে বলা হয় হোস্টিং। আমাদের বাংলাটেক টোয়েন্টিফোর ডটকম ও একটি ওয়েবসাইট।

ইন্টারনেটে থাকা সকল ওয়েবসাইট মিলে তৈরী হয় ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব। অনেকেই ওয়েবসাইটকে “ওয়েব পেজ” ও বলে থাকেন। তবে এটি সম্পূর্ণ ভুল। ওয়েব পেজ হলো একটি মাত্র পেজ, অন্যদিকে ওয়েবসাইট হলো এই ধরনের অনেক পেজের সমাহার।

ওয়েবসাইট কিভাবে কাজ করে

ওয়েবসাইট এর কার্যক্রম বোঝা কিন্তু তেমন কঠিক কোনো বিষয় নয়। ওয়েবসাইট এর ফাইলসমুহ একটি ফিজিক্যাল হোস্টিং সার্ভারে জমা থাকে। হোস্টিং সার্ভার এ ওয়েবসাইট এর কোড থেকে শুরু করে সকল ফাইল সংরক্ষণ করা হয়।

ওয়েবসাইট যাতে সহজে অ্যাকসেস করা যায়, তাই প্রতিটি ওয়েবসাইট এর একটি আইপি এড্রেস থাকে। যেহেতু এই আইপি এড্রেস একাধিক সংখ্যার সমন্বয় তৈরি, তাই এটি মনে রাখা কঠিন। এই প্রক্রিয়াকে সহজ করার লক্ষ্যে ওয়েবসাইটে প্রবেশের দরজা হিসেবে কাজ করে ডোমেইন নেম।

কোনো ব্যবহারকারী যখন কোনো ব্রাউজারে একটি ওয়েবসাইট এর ডোমেইন লিখে প্রবেশ করেন, তখন উক্ত ওয়েবসাইট এর হোস্টিং সার্ভার থেকে ওয়েবসাইট এর হোম পেজ, লেআউট, ফাইল, ইত্যাদি ব্রাউজার গ্রহণ করে ব্যবহারকারীর ডিভাইসে প্রদর্শন করে।

কেন ওয়েবসাইটের প্রয়োজন

আপনার যদি নিজের কোনো ব্যবসা থাকে, সেক্ষেত্রে অবশ্যই একটি ওয়েবসাইট থাকা উচিত। আর যেকোনো প্রতিষ্ঠানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থাকা তো বর্তমানে একটি সাধারণ ব্যাপার হয়ে গিয়েছে।

ওয়েবসাইট কি তা তো জানলাম। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কেনো আপনার একটি ওয়েবসাইট থাকা প্রয়োজন।

ডিজিটাল বিজনেস কার্ড

বর্তমানে মানুষ তাদের সময়ের বেশিরভাগ অংশ ইন্টারনেট ব্রাউজ করে কাটায়। কোনো ব্যবসার প্রতিনিধি হিসাবে আপনার ফোকাস থাকা উচিত মানুষজন যেখানে তাদের সময় ব্যয় করে সেখানে। আপনার প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে যাতে খুভ সহজেই মানুষ জানতে পারে তার সুযোগ প্রদান করে থাকে ওয়েবসাইট।

একটি ওয়েবসাইট কি শুধুই একটি ভার্চুয়াল পেজের সমাহার? না । এটি একটি প্রতিষ্ঠান বা একজন ব্যক্তির জন্য ডিজিটাল বিজনেস কার্ড এর মত কাজ করে। কন্টাক্ট ইনফরমেশন, কর্মীদের তথ্য, প্রদত্ত সেবা, অফার, ইত্যাদি তথ্য ওয়েবসাইটে দেওয়ার মাধ্যমে পুরো বিশ্বের কাছে খুব সহজেই আপনি কিংবা আপনার প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে তুলে ধরতে পারবেন।

সার্চ ইঞ্জিনে উপস্থিতি

মানুষজন কিন্তু শুধুমাত্র তাদের পছন্দের ব্যবসা খুঁজে পেতে ইন্টারনেট ব্রাউজ করেনা। লোকজন সার্চ ইঞ্জিন, যেমনঃ গুগল, বিং, ইত্যাদি ব্যবহার করে তাদের প্রয়োজনীয় বিষয়বস্তু বের করে। ৯৩ শতাংশ অনলাইন অ্যাক্টিভিটি শুরু হয় সার্চের মাধ্যমে। আবার এর মধ্যে প্রায় অর্ধেক সার্চ হয়ে থাকে শুধুমাত্র স্থানীয় ব্যবসা সম্পর্কিত।

সুতরাং, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজড ও সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্টে র‍্যাংক করে এমন একটি ওয়েবসাইট থাকা একান্ত জরুরি। এর ফলে কনজ্যুমারগণ খুব সহজেই আপনার ব্যবসা খুঁজে পাবে ও তার সাথে যুক্ত হতে পারবে।

পণ্য বিক্রয়ে সহায়তা

বর্তমানে অধিকাংশ মানুষ কোনো পণ্য ক্রয়ের আগে সে পণ্য সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ইন্টারনেটে একবার হলেও ঘুরে আসে। প্রতি ৫জন গ্রাহক এর মধ্যে ৪জন গ্রাহক স্থানীয় তথ্যের জন্য সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে থাকে। এসব সার্চকে সাধারণ সার্চ ভেবে বোকামি করবেন না, কারনঃ মোবাইল ডিভাইসে সংঘটিত ৮৮% স্থানীয় ব্যবসা সম্পর্কিত সার্চ ২৪ঘন্টার মধ্যে সেলে পরিণত হয়ে থাকে। আপনার ব্যবসার সেবা বা পণ্য সমুহের উল্লেখ করে যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে, সেক্ষেত্রে গ্রাহকগণ খুব সহজেই আপনার পণ্য বা সেবা খুঁজে পাবে।

বিশ্বাসযোগ্যতা স্থাপন

আপনার ব্যবসা বা সেবা নিয়ে আপনি কতোটা সিরিয়াস, সে সংখ্যায় একটি বিশাল অবদান রাখে ওয়েবসাইট। কোনো কনজ্যুমারকে কোনো পণ্য ক্রয়ে আগ্রহী করতে ফার্স্ট ইম্প্রেশন খুবই জরুরি। ৫৭শতাংশ মানুষ ওয়েবসাইট নেই এমন ব্যবসা থেকে দূরে থাকে।

একটি প্রফেশনাল ডিজাইন এর মানসম্মত ওয়েবসাইট যা খুব সহজেই ব্যবহার করা যায়, সকল ব্যবসার এমন একট ওয়েবসাইট থাকা জরুরি। কনজ্যুমারগণ এমন ওয়েবসাইট আছে সে ধরনের ব্যবসার উপর বিশ্বাস স্থাপনে অধিক স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন। একটি ওয়েবসাইট কি সত্যিই একটি ব্যবসা, প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তিকে উপস্থাপন করে? সে ব্যাপারেও নজর দিতে হবে।

গুগল সার্চ

আপনি যদি একটি স্থানীয় ব্যবসা পরিচালনা করে থাকেন, তাহলে আপনার ব্যবসার অবস্থানের আশেপাশের মানুষজন আপনার প্রধান গ্রাহক হবে। এই কাজটি আরো সহজ করে দেয় গুগল সার্চ। আপনার ব্যবসা সম্পর্কিত অধিক সার্চ করা কিওয়ার্ডে আপনার সাইট র‍্যাংক না করলে, চিন্তার কোনো কারণ নেই।

কোনো গ্রাহক যখন গুগলে কোনো নির্দিষ্ট পণ্য বা ব্যবসা সম্পর্কিত সার্চ করে, তখন ওই গ্রাহক অবস্থানের উপর নির্ভর করে তার আশেপাশের ব্যবসাসমূহকে সর্বপ্রথমে সাজেস্ট করা হয় গুগল সার্চে। যার ফলে খুব সহজেই স্থানীয় ব্যবসা হিসেবে আপনি উন্নতি করতে পারেন গুগল সার্চে নিজের ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে। 

২৪x৭ খোলা

আপনার ব্যবসা দিনের নির্দিষ্ট সময় বন্ধ থাকলেও আপনার ওয়েবসাইট কিন্তু ২৪ঘন্টা ৭দিন খোলা থাকে। যার ফলে আপনি যখন কাস্টমারদের সাথে কথা বলার জন্য থাকেন না, তখন এই দায়িত্ব পালন করতে পারে আপনার ওয়েবসাইট। এর ফলে কেউ যখন আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হয়, তখন আপনি আশেপাশে রেসপন্স করার জন্য না থাকলেও আপনার ওয়েবসাইট জরুরি সকল তথ্য প্রদান করে। তাছাড়া ওয়েবসাইট কাস্টমারদের সাথে যোগাযোগ অথবা অর্ডার নেওয়ার মাধ্যম হিসাবেও ব্যবহার করা যায়।

প্রতিযোগিতা

বর্তমানে প্রায় সব ধরনের প্রতিষ্ঠানের একটি ওয়েবসাইট থাকা বাধ্যতামূলক। মাত্র ৩৬শতাংশ ছোট ব্যবসার নিজস্ব কোনো ওয়েবসাইট নেই। তার মানে আপনার ওয়েবসাইট না থাকলেও, খুব সম্ভবত আপনার প্রতিযোগীর একটি ওয়েবসাইট রয়েছে। এর মানে একই ব্যবসা করেও অনলাইনে কনজ্যুমারগণ আপনাকে খুঁজে পাওয়ার সুযোগ থাকছেনা, আর অন্যদিকে আপনার প্রতিযোগী এর সুবিধা ভোগ করছে। তাই প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলেও অবশ্যই একটি ওয়েবসাইট থাকা জরুরি।

অনলাইন স্টোর

ইকমার্স বর্তমানের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি বিষয়। আপনি যে ধরনের পণ্য বিক্রি করে থাকুন না কেনো, অনলাইনে আপনার পণ্য ক্রয়ের অনেক সুযোগ আছে। অনলাইনে অর্ডার নেওয়ার মাধ্যমে ঘরে বসেই কাস্টমার আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারছে এবং আপনার ব্যবসার উন্নতি হচ্ছে।

এছাড়াও আপনি যদি কোনো ধরনের সেবা প্রধান করে থাকেন, সেক্ষেত্রেও ওয়েবসাইট কাজে আসতে পারে। বুকিং বা হায়ারিং এর ক্ষেত্রে বেশিরভাগ মানুষই ওয়েবসাইট পছন্দ করেন। তাই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান, উভয়ের একটি ওয়েবসাইট থাকা জরুরি।

ওয়েবসাইট কি ব্র‍্যান্ড ইমেজ বৃদ্ধি করে?

অবশ্যই! আপনার ব্যবসা সম্পর্কে কোনো ব্যক্তি জানার পর সর্বপ্রথম ইন্টারনেটে সার্চ করবে। এখন এই ক্ষেত্রে সার্চ এর জবাব দিতে যদি আপনার ওয়েবসাইট থাকে, তাহলে ব্যাপারটি আপনার ও গ্রাহক, উভয়ের জন্যই সহজ হয়ে যায়। ফেসবুক বা গুগল মাই বিজনেস এর মত সেবাতে আপনার ব্যবসা অন্তর্ভুক্ত থাকলেও একটি ওয়েবসাইট থাকার মাধ্যমে আপনার ব্যবসার প্রফেশনালিজম প্রকাশ পায়। যার ফলে গ্রাহকগণ খুব সহজেই আপনার ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবে।

Leave a Comment