মোবাইল চার্জ বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

মোবাইল চার্জ বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য…

সময়ের সাথে সাথে ফোনের ব্যাটারি ব্যাকাপ কমে আসে। তবে ফোনের ব্যাটারিকে ভালো রাখার ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে ফোন চার্জ করার প্রক্রিয়া। এই পোস্টে জানবেন মোবাইল চার্জ সম্পর্কিত সকল প্রশ্নের উত্তর।

এখন অধিকাংশের হাতেই রয়েছে স্মার্টফোন। স্মার্টফোন থাকার ফলে অনেক ক্ষেত্রেই বেশ কিছু সুবিধা হয়েছে। টাকা জমা থেকে শুরু করে রিচার্জ, অথবা গেমিং থেকে সিনেমা দেখা। সব কিছুর জন্য প্রয়োজন সঠিক ব্যাটারি। হাই স্পেশিফিকেশন ফোন কিনলেও যদি ব্যাটারি সঠিক না থাকে তাহলে সমস্যায় পড়তে হয়। স্মার্টফোন পুরো অচল। এর থেকে বাঁচার জন্য প্রয়োজন সঠিক ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যাটারি। যার চার্জ থাকবে দীর্ঘক্ষণ।

বর্তমানে অধিকাংশ ফোনে অত্যন্ত ক্ষমতাশালী ব্যাটারি দেওয়া হলেও অনেক ফোনে সাধারণ কম ক্ষমতার ব্যাটারি দেওয়া হয়। এর ফলে খুব অল্প সময়েই চার্জ শেষ হয়ে যায়। একারণে বিভিন্ন সংস্থার তরফে বেশি ক্ষমতার ব্যাটারি দেওয়া হয। অন্যদিকে যে সব ফোনে কম ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যাটারি দেওয়া হয় সেই সব ফোনে একাধিকবার চার্জ দিতে হয়। সেক্ষেত্রে বারবার চার্জ দেওয়ার ফলে বিদ্যুৎ বিল বেশি আসার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না প্রতিবার চার্জিংয়ের ক্ষেত্রে ঠিক কত পরিমাণ বিদ্যুৎ খরচ হয়। নিম্নে আমরা জানব মোবাইল চার্জ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য:-

ফোন কি প্রতিবার ১০০% চার্জ করা উচিত?

না, ফোনে প্রতিবার ১০০% চার্জ করা থেকে বিরত থাকাই শ্রেয়। অনেকে ব্যাটারি ১০০% চার্জ হওয়ার পরেই চার্জ থেকে খুলেন, তবে এটি ঠিক না। ব্যাটারি ফুল চার্জ করার ফলে ব্যাটারি সাইকেল দ্রুত শেষ হয়ে যায়, যার ফলে ব্যাটারি হেলথ কমে যায়। তাই লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ভাল রাখতে ২০-৮০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ করা ভালো একটি কাজ হতে পারে।

আইওএস ১৩ ও পরের ভার্সনগুলোতে Battery Settings অপশনে Battery Health মেন্যু থেকে অপটিমাইজড ব্যাটারি চার্জিং ফিচার অন করলে ফোন অপটিমাইজড পদ্ধতিতে চার্জ হয়। এই ফিচার চালু থাকলে লোকেশন সার্ভিস ও সময় ব্যবহার করে পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে আইফোন ৮০% পর্যন্ত চার্জ হয়। যার ফলে ব্যাটারি দীর্ঘদিন ধরে ভালো থাকে। অনেক এন্ড্রয়েড ফোনেও এই ফিচারটি আছে।

কখন ফোন চার্জ দেওয়া উচিত?

আপনার ফোনের ব্যাটারিকে ভালো রাখতে ফোনের চার্জ ২০% এর আশেপাশে থাকতেই চার্জ করুন এবং ৯০% মত চার্জ হয়ে গেলে খুলে নিন চার্জ থেকে – অধিকাংশ এক্সপার্টরাই স্মার্টফোন চার্জের এই নিয়মটি সাজেস্ট করে থাকেন। ফোনের চার্জ ২০%-৮০% সাইকেলে চার্জ করলে ফোনের ব্যাটারি সাইকেল দ্রুত শেষ হয়ে যায়না, যার ফলে ফোনের ব্যাটারি দীর্ঘসময় ধরে ভালো থাকে।

৮০-১০০% চার্জ করার ফলে লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির ক্ষেত্রে ফোনের আয়ু দ্রুত শেষ হয়ে আসে। তাই ফোন সারা রাত ধরে চার্জ করার চেয়ে সকালে খেতে বসার সময় বা অফিসে চার্জ করাই উত্তম। অধিকাংশ ফোনে বর্তমানে ফাস্ট চার্জিং থাকার দরুণ ফোন রাতে চার্জে বসানোর কোনো প্রয়োজন পড়েনা। আবার ফোনের চার্জ ২০% এর নিচে আসার আগে চার্জে দেওয়ার চেষ্টা করুন, এতে ফোনের ব্যাটারি ও হার্ডওয়্যার এর উপর কম চাপ পড়ে।

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি মাঝামাঝি অবস্থাতে সবচেয়ে ভালো কাজ করে। তাই ফোনের চার্জ একেবারে লো করে ফেলবেন না, আবার খুব বেশি ১০০% পর্যন্ত চার্জ করা থেকেও বিরত থাকুন।

চার্জে দিলে ফোন গরম হয় কেনো?

স্বভাবতই ব্যাটারির প্রধান শত্রু হলো হিট, আবার বেশি ঠান্ডাও ব্যাটারির ক্ষতি করে – বিশেষ করে এই নিয়মটি ফোন চার্জ করার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। যদি আপনার ফোন চার্জ করার সময় বেশি গরম হয়, তাহলে এটি ব্যাটারিকে আঘাত করছে বলে ধরে নিন। তাই ফোন চার্জ করার সময় আশেপাশের পরিবেশ যথেষ্ট ঠান্ডা ও গরমের মাঝামাঝি রাখার চেষ্টা করুন। তারপরেও ফোন বেশি বা অতিরিক্ত গরম হলে সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

ফোনে বন্ধ রাখতে চাইলে কি করা উচিত?

লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারির চার্জ কখনই ০% করে ফেলে রাখা উচিত না। আপনি যদি ফোন লম্বা সময় ধরে ব্যবহার না করার সিদ্ধান্ত নেন, অবশ্যই কমপক্ষে ৫০% চার্জ করে ফোন বন্ধ করে রাখুন। ফোন এমনি বন্ধ করে ফেলে রাখলেও একটু একটু করে ব্যাটারির চার্জ কমে যায়। তাই ফোনের ব্যাটারি নষ্ট হওয়া থেকে বাঁচাতে অবশ্যই নির্দিষ্ট পরিমাণ চার্জ করে তবেই মোবাইল বন্ধ রাখুন। এতেও দীর্ঘ দিন পর ফোনের চার্জ একেবারে শেষ হবে। তাই বন্ধ রাখা ফোন মাঝে মধ্যে ওপেন করে চার্জের অবস্থা চেক করা উত্তম।

যেকোনো চার্জার ব্যবহার করা উচিত কি?

যথাসম্ভব ফোনের সাথে প্রদত্ত চার্জার কিংবা সঠিক রেটিংয়ের চার্জার ব্যবহারের চেষ্টা করুন। যদি নিতান্তই থার্ড-পার্টি চার্জার ব্যবহার করতে হয়, তাহলে উক্ত চার্জার আপনার ডিভাইস নির্মাতা প্রতিষ্ঠান দ্বারা সম্মত কিনা তা জেনে নিন। খুব কম দামে অসাধারণ সব চার্জার বাজারে পাওয়া গেলেও যথাসম্ভব ফোন ম্যানুফ্যাকচারিং প্রতিষ্ঠান প্রদত্ত আসল চার্জার ব্যবহারের চেষ্টা করুন।

চার্জে দিয়ে ফোন ব্যবহার করা উচিত কি?

ফোন চার্জে রেখে ব্যবহার কিংবা ভিডিও দেখার বিষয়টি অনেকের কাছেই বেশ সাধারণ। তবে, এই পদ্ধতিতে মূলত ছোট ছোট সাইকেলে ফোন চার্জ করে ব্যাটারিকে বিভ্রান্ত করছেন আপনি, যার ফলে ব্যাটারির অবস্থা খুব দ্রুত খারাপ হতে থাকবে। ফোন চার্জ করার সময় ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। এছাড়া এতে ফোন অতিরিক্ত গরম হয়ে যায় যেটা আসলে ক্ষতিকর। যেহেতু বর্তমানে অধিকাংশ ফোনের সাথে ফাস্ট চার্জিং রয়েছে, তাই ফোন চার্জে লাগিয়ে ব্যবহার করা কিন্তু অনেকটা বোকামির পর্যায়ে পড়ে।

রাতে মোবাইল চার্জ দেওয়া উচিত কি?

যদি সম্ভব হয়, রাতে মোবাইল চার্জে দিয়ে ঘুমানো এড়িয়ে চলুন। ঘুম থেকে উঠে অধিকাংশ সময় দেখা যায়, ফোন ১০০% চার্জ হয়ে গেছে। ফুল চার্জ হলে ‘সাইকেল’ কাউন্ট হয়, যার ফলে দ্রুত ব্যাটারির আয়ু শেষ হতে পারে।

রাতে আরেকটি সমস্যা আছে ফোন চার্জে রাখার ক্ষেত্রে। ফোন ব্যবহার ছাড়াও আমাদের কিন্তু চার্জ হারায়। রাতে ফোন চার্জে লাগিয়ে রাখলে তা ফুল চার্জ হওয়ায় পর যখন চার্জ কিছুটা কমে, তা আবার চার্জ হতে শুরু করে ও ফুল চার্জ হয়। এভাবে এই প্রক্রিয়া সারারাত চলতে থাকে, যা ব্যাটারির সক্ষমতা হ্রাস করে দেয়। তাই খুব বেশি দরকার না হলে রাতভর ফোন চার্জ করা থেকে বিরত থাকাই শ্রেয়।

ফাস্ট চার্জিং কি ফোনের ক্ষতি করে?

বর্তমানে বেশিরভাগ ফোনে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা দেখা যায়। ফোনের বক্সেই মাথানষ্ট সব ফাস্ট চার্জার প্রদান করছে অনেক স্মার্টফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান। এখন আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, ফাস্ট চার্জিং ফোনের জন্য ক্ষতিকর কিনা। সহজ উত্তর হলো “না”, ফাস্ট চার্জিং করা কিন্তু ফোনের জন্য ক্ষতিকর নয়। আপনার ফোনের জন্য তৈরী ফাস্ট চার্জার ব্যবহারে ফোনের কোনোরকম ক্ষতি হবেনা। তবে, ফাস্ট চার্জিং এর ফলে তৈরী হওয়া হিট হয় বলে তা কিছুটা হলেও ফোনের ব্যাটারিতে প্রভাব ফেলে। তবে ফোনের বক্সে সাথে আসা ফাস্ট চার্জিং কিট ব্যবহার করে ফোন চার্জ করলে আহামরি কোনো ক্ষতি হওয়ায় সম্ভাবনা নেই বলা চলে।

Leave a Comment